You are currently viewing পলাশ ফুল গাছের কুঁড়ি আসার পর পরিচর্যা

পলাশ ফুল গাছের কুঁড়ি আসার পর পরিচর্যা

পলাশ যে আজ আপামর বাঙালীর কাছে কতটা জনপ্রিয় ও ভালোবাসার একটি ফুল তা হয়ত আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যাদের বাড়ীতে পলাশ গাছ আছে সেইসব গাছ এতদিনে নিশ্চয়ই প্রচুর কুঁড়িতে ভরে গেছে। আর পলাশের কুঁড়ি এসে যাওয়া মানেই শীতের বিদায় আসন্ন।” আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারে”।প্রাক্ বসন্তে প্রকৃতি আবার তার রঙের ডালি নিয়ে অপেক্ষমান বসন্তকে স্বাগত জানানোর জন‍্য। আর মাত্র কিছুদিনের অপেক্ষা। তারপরই রোদ ঝলমলে আকাশে বাগানে বাগানে শুরু হবে লাল হলুদ পলাশের রঙের ছড়াছড়ি। বসন্তে বাঙালীর প্রিয় বসন্তোৎসবে ছোট বড়ো সকলে নিজেদেরকে পলাশের ফুল মালায় সজ্জিত করে কবিগুরুর ভাবনায় গানে গানে  বসন্তকে আহ্বান করার দৃশ‍্য আজ ও আমাদের নস্ট‍্যালজিক করে তোলে। পলাশ ফুল ছাড়া বাঙালীর প্রাণের পলাশপ্রিয়ার আরাধনাও যে সম্ভব নয়। তাই যারা পলাশ করেছ বা যাদের পলাশ গাছে প্রচুর কুঁড়ি এসে গেছে তারা নিশ্চয়ই চাইছো প্রতিটা কুঁড়ি যাতে প্রস্ফুটিত হয়ে গাছ রঙে রঙে রঙীন হয়ে ওঠে। সেই কথা মাথায় রেখেই আমার এই পর্বের আলোচনা।

বি:দ্র:– যদি তোমরা কুঁড়ি সমেত পলাশ গাছ নিতে চাও  অথবা সমস্ত গাছে ব্যবহার করার জন্য special blend fertilizer নিতে চাও তবে আমার হোয়াটসঅ‍্যাপ নম্বরে 8972774914 যোগাযোগ করার অনুরোধ রইল।

কুঁড়ি আসার পর ব্যবস্থাপনা :–

প্রথমত কুঁড়ি আসার পর লক্ষ‍্য রাখতে হবে টবের মাটি যেন কোনভাবেই শুকিয়ে না যায়। যদি কোনভাবে মাটি শুকিয়ে যায় তবে গাছের কুঁড়ি সব ঝরে পড়ে যাবে। এই সময় গাছের মাটি সবসময় ভেজা ভেজা রাখতে হবে। কিন্তু জল দিতে গিয়ে খেয়াল রাখতে হবে যাতে গাছের গোড়ায় জল কোনভাবেই না জমে। তবে গাছের গোড়া পচে গাছ মারা যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। গাছের গোড়া সবসময় পরিষ্কার রাখতে হবে।

খাবারের ব্যবস্থাপনা :–

টবের মাটি খুশে দিয়ে ভার্মিকম্পোস্ট দিয়ে মালচিং করতে হবে। এই ভার্মিকম্পোস্টের সাথে এক চা চামচ ফসফেট ও এক চা চামচ মিউরেট অফ পটাশ / সালফেট অফ পটাশ মেশাতে হবে। এছাড়া আমার তৈরী special blend fertilizer যদি দিতে চাও তবে , এই সারটা ভার্মিকম্পোস্টের সাথে মিশিয়ে মালচিং করতে হবে। সার দেওয়ার আগের দিন অবশ‍্যই  টবের মাটি ভিজিয়ে দিতে হবে। ভার্মিকম্পোস্ট না থাকলে শুধুমাত্র এই special blend fertilizer একবার করে দিলে আর কোনরকম সার ব‍্যবহারের প্রয়োজন হবে না। যারা এই special blend fertilizer ব‍্যবহার করবে তাদের আর কোনরকম মাইক্রোনিউট্রিয়েন্স ব‍্যবহার করতে হবে না, কিন্তু যারা এটা ব‍্যবহার করবে না তারা একটা মাইক্রোনিউট্রিয়েন্স ব‍্যবহার করলে ভালো ফল পাবে।

এই সময় রোগপোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন‍্য নিয়মিত সাতদিন অন্তর কীটনাশক ব‍্যবহার করতে হবে। কিন্তু এই সময় কোনরকম ফাংগিসাইড ব‍্যবহার করা যাবে না।

যারা পলাশের রঙে রঙে বাগান সাজিয়ে বসন্তকে আহ্বান জানাতে চাও আজকের পর্বটি আশাকরি তাদের অনেক উপকারে আসবে।যদি এর ভিডিওটি দেখতে চাও তবে নিচের লিংক অনুসরণ করার অনুরোধ রইল।সকলকে ধন‍্যবাদ।🙏🙏

Hortichulture Aarindam

আমি অরিন্দম, একজন গর্বিত ভারতীয় নাগরিক, প্রকৃতি প্রেমিক, ফটোগ্রাফার এবং ইউটিউবার। এটি আমার ব্লগ যেখানে আমি গাছ সংক্রান্ত আমার কাজ এবং বিশেষ বিশেষ গাছের পরিচর্যা পদ্ধতি শেয়ার করি।

Leave a Reply