You are currently viewing ফ্লাক্স গাছের সম্পূর্ণ পরিচর্যা

ফ্লাক্স গাছের সম্পূর্ণ পরিচর্যা

গোল্ডেন ফ্লাক্স(Linum flavum ‘Compactum’) মধ‍্য ও দক্ষিণ ইউরোপের Linaceae পরিবারের ফুলের উদ্ভিদের একটি প্রজাতি। এটি একটি চিরসবুজ বহুবর্ষজীবী, যা উজ্জ্বল হলুদ ফুলে আচ্ছাদিত ছোট, ডিম্বাকৃতি নীল-সবুজ পাতার একটি ঢিবি গঠন করে। 

আজ আমি এই পর্বে গোল্ডেন ফ্লাক্স এর সম্পূর্ণ পরিচর্যা আলোচনা করব…

 বি:দ্র:–  তুমি যদি  ঘরে বসে এই গাছটি পেতে চাও  অথবা গাছের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি মৌল পেতে চাও তাহলে 8972774914 এই নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারো I 

মাটির ব্যবস্থাপনা :–

এই গাছ দোঁয়াশ মাটি/হালকা দোঁয়াশ মাটি/বেলে মাটি পছন্দ করে। এঁটেল মাটি একেবারেই পছন্দ করে না। তাই এর জন‍্য দরকার একভাগ গার্ডেন সয়েল(হাতের কাছে যে ধরনের মাটি আছে),দুভাগ নদীর সাদা বালি(river sand/silver sand/horticultural sand) ও একভাগ ভার্মিকম্পোস্ট বা এক বছরের পুরোনো পচানো গোবর সার বা পাতা পচা সার। এর সাথে আট/দশ/বারো ইঞ্চি টবের জন‍্য এক চা চামচ ফসফেট মিশিয়ে নিতে হবে।

 আলোর ব্যবস্থাপনা :–

প্রতিস্থাপন করার পর দু তিন দিন গাছটা একটু ছায়াযুক্ত জায়গায় রাখতে হবে। আর রাতের বেলা(বর্ষাকাল ছাড়া) খোলা আকাশের নীচে রাখতে হবে। এরপর থেকে সরাসরি সূর্যালোক পায় এমন জায়গায় রাখতে হবে। ছায়া বা হালকা ছায়াযুক্ত জায়গায় গাছটা রাখলে ফুলের সংখ‍্যা ও ফুলের ঔজ্জ্বল‍্য কম হবে।

জলের ব্যবস্থাপনা :–

এই গাছ জল খুব বেশি ভালোবাসে না কিন্তু ময়েশ্চার ভালোবাসে। তাই লক্ষ‍্য রাখতে হবে যেন মাটি খুব বেশি ভেজা ভেজা না থাকে। তাই টবের মাটি ওপর থেকে এক-দু ইঞ্চি শুকিয়ে গেলে তখন আবার ভরপুর জল দিতে হবে।

খাবারের ব্যবস্থাপনা*:–

জলে দ্রবীভূত NPK(19.19.19/20.20.20) এক লিটার জলে এক গ্রাম দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে তার থেকে আড়াইশো মিলি মাসে একবার করে দিতে হবে।দানাযুক্ত NPK এক চামচ করে মাসে একবার টবের কানা বরাবর দিয়ে জল ঢেলে দিতে হবে। সার দেওয়ার আগের দিন টবের মাটি ভিজিয়ে নিতে হবে।

বি:দ্র :– এছাড়া আমার কাছে একটা Special Blend Fertilizer পাওয়া যায়। এই fertilizer টা একমুঠো করে প্রত‍্যেকমাসে একবার করে দিলে আর কোনরকম খাবার দেওয়ার দরকার পড়বে না। যদি এই Special Blend Fertilizer নিতে চাও তবে আমার হোয়াটসঅ‍্যাপ নম্বরে 8972774914 যোগাযোগ করার অনুরোধ রইল।

রোগপোকা নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি :– 

রোগের মধ‍্যে পাতা পচা ও পাতায় দাগ দেখা যায়। এর জন‍্য সাফ/ম‍্যানসার/ব্লাইটক্স/ব‍্যাভিস্টিন/M45 এক লিটার জলে এক গ্রাম দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে যদি দশ দিন পর পর স্প্রে করা যায় তবে এই রোগ হাত থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

এই গাছে প্রচুর অ‍্যাফিডস এর আক্রমণ হয়। এর জন‍্য ডাইমেথয়েড 30% কম্পোজিসনের কীটনাশক রোগর/রোগর প্লাস/টাফগর এক লিটার জলে তিরিশ ফোঁটা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে যদি সাত দিন বা দশ দিন পর পর স্প্রে করা যায় তবে এই পোকার আক্রমণ ও প্রতিহত করা সম্ভব।

এই হল ফ্লাক্স ফুল গাছের সম্পূর্ণ পরিচর্যা। যারা এই ফুল গাছ করতে চাও তাদের সকলের আজকের পর্বটি অনেক সাহায‍্য করবে আশা রাখছি। এর ভিডিওটি দেখতে হলে নিচের দেওয়া লিংকটি অনুসরণ করার অনুরোধ রইল। সকলকে ধন‍্যবাদ।🙏

Hortichulture Aarindam

আমি অরিন্দম, একজন গর্বিত ভারতীয় নাগরিক, প্রকৃতি প্রেমিক, ফটোগ্রাফার এবং ইউটিউবার। এটি আমার ব্লগ যেখানে আমি গাছ সংক্রান্ত আমার কাজ এবং বিশেষ বিশেষ গাছের পরিচর্যা পদ্ধতি শেয়ার করি।

This Post Has 2 Comments

Leave a Reply